ই-পেপার | সোমবার , ২৪শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেপ্তার ২

মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, ময়মনসিংহ:

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় পরোয়ানাভুক্ত দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা দীর্ঘদিন ধরে আত্মগোপনে ছিলেন বলে জানিয়েছেন ময়মনসিংহেরে পুলিশ সুপার (এসপি) মাছুম আহম্মেদ ভূঞা।

রোববার (২৫ জুন) বিকেল ৫টায় ময়মনসিংহ জেলা পুলিশের কার্যালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনে পুলিশ সুপার এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

আসামিরা হলেন-ফুলপুর উপজেলা জামায়াতের সাবেক আমির মাহাবুব আলম মণ্ডল (৭০) ও ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার সোহাগী এলাকার বাসিন্দা হাসিম উদ্দিন ওরফে আবুল হাসেম (৬৫)।

 

তাদের মধ্যে আবুল হাসেমকে রোববার দুপুর দেড়টার দিকে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার সোহাগী ইউনিয়নের বগাপোতা এলাকার এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে ঈশ্বরগঞ্জ থানা পুলিশ। তার বিরুদ্ধে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে হত্যা, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ অভিযোগ রয়েছে। ২০২১ মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল তার নামে চার্জ গঠন করে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

 

অপরদিকে ২০০৯ সালে দায়ের করা মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলা হওয়ার পর ১৪ বছর পলাতক ছিলেন মাহাবুব আলম। এরপর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার বিকেল সোয়া ৩টার দিকে ময়মনসিংহের তিনকোণা পুকুরপাড় এলাকায় মেয়ের বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে ফুলপুর থানা পুলিশ। তার নামে মুক্তিযুদ্ধের সময় স্থানীয় বাসিন্দা ও পরিমল চন্দ্র দাসের বাবা যোগেশ চন্দ্র দাসসহ নয়জনকে হত্যা, লুটপাট ও বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগের অভিযোগ রয়েছে। মামলাটি করেন পরিমল চন্দ্র দাস।

এসপি মাছুম আহম্মেদ ভূঞা আরও জানান, এ ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের ২৬ জুন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হবে।

 

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রায়হানুল ইসলাম, শামীম আহাম্মেদ, জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সফিকুল ইসলাম, কোতোয়ালি থানার ওসি শাহ কামাল আকন্দ, ফুলপুর থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন, ঈশ^রগঞ্জ থানার ওসি পীরজাদা মোস্তাছিনুর রহমানসহ অনেকে।

 

 

এইচ এম কাদের.সিএনএন বাংলা২৪