ই-পেপার | বৃহস্পতিবার , ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

অবৈধভাবে ফসলী জমির মাটি কাটায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান, ভেকু ও সেলো ম্যাশিন জব্দ!

 

সিরাজদিখান প্রতিনিধিঃ

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে অবৈধভাবে ফসলী জমির মাটি কেটে বিক্রির অভিযোগে অভিযান পরিচালনা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। স্থানীয় সাংবাদিক ও এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে গতকাল বুধবার বিকালে উপজেলার কোলা ইউনিয়ন নন্দনকোনা গ্রামে সরেজমিনে এই অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সিরাজদিখান উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) উম্মে হাবিবা ফারজানা। এসময় ভ্রাম্যমান আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে মাটি কাটা সিন্ডিকেটের লোকজন কৌশলে পালিয়ে যায়। পরে মাটি কাটার কাজে ব্যবহৃত ভেকু (মাটি কাটার যন্ত্র) ও সেচের কাজে ব্যবহৃত একটি সেলো মেশিন জব্দ করে পরবর্তীতে জব্দকৃত ভেকু ও সেলো ম্যাশিন যাতে পরবর্তীতে ব্যবহার করতে না পারে সে জন্য কোলা ১,২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের মহিলা ইউপি সদস্য সালমা বেগমের জিম্মায় রাখা হয়।স্থানীয়রা জানায়, শ্রীনগর উপজেলার বাসিন্দা হিরা নামে এক ব্যক্তি বিগত কয়েকমাস যাবৎ কোলা ইউনিয়নের নন্দনকোনা গ্রামের অন্তর্গত নন্দনকোনা চকের ফসলী জমির মাটি কিনে নিয়ে ভেকু দিয়ে কেটে বিক্রি করে আসছিলো। স্থানীয় লোকজন মাটি কেটে বিক্রির কারণে যাতায়াতের রাস্তার ক্ষতি সাধণ হওয়ায় মাটি কাটা বন্ধে বেশ কয়েকবার প্রতিবাদ জানালেও কোন কাজ হয়নি। স্থানীয় গুটি কয়েক রাজনৈতিক প্রভাবশালী ব্যক্তির প্রভাবের ছায়াতলে থেকে অভিযুক্ত হিরা অবৈধ উপায়ে মাটি কেটে বিক্রি করে আসছিলো মর্মে অভিযোগ স্থানীয় এলাকাবাসীর। ফসলী জমির মাটি কাটা বন্ধের জন্য প্রশাসনের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন স্থানীয় এলাকায় লোকজন। এ ব্যপারে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি উম্মে হাবিবা ফারজানা মুঠোফোনে বলেন, আমরা সেখানে যাওয়ার আগেই তারা পালিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে দুটি ভেকু ও একটি সেলো ম্যাশিন জব্দ করে মহিলা ইউপি সদস্যের জিম্মায় রাখা হয়। যাতে এগুলো পরবর্তীতে ব্যবহার করতে না পারে।