ই-পেপার | বুধবার , ১৭ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

যার অবদান কখনও ভুলবেনা ময়মনসিংহের মানুষ

মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, ময়মনসিংহঃ

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উন্নয়নের কারিগর সাবেক পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাসির উদ্দিন আহমেদ। হাসপাতালে তার কৃতিত্ব ময়মনসিংহবাসী কোনোদিন ভুলবে না। কোনোদিন ভুলারও নয়।

 

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের ১ নভেম্বর মো. নাছির উদ্দীন হাসপাতালের পরিচালক হিসেবে যোগদান করেন। এ সময় হাসপাতালের ব্যাপক উন্নয়নে নগরীর বেসরকারি হাসপাতালগুলো রোগীশূন্য হয়ে পড়লে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয় মালিকরা। নাছির উদ্দিন আহমেদের বদলীর জন্য উঠে পড়ে লাগেন তারা।

 

এরই প্রেক্ষিতে ২০১৭ সালের শেষের দিকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক নাছির উদ্দিন আহমেদের বদলির আদেশ আসে। বদলির আদেশের খবরে ফুঁসে ওঠে ময়মনসিংহবাসী। বদলির আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে ময়মনসিংহবাসী মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল করে।

 

সাধারণ মানুষের আন্দোলনের প্রেক্ষিতে ২০১৭ সালের ১৯ জুলাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাসিরের বদলি প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে চিঠি দেন ময়মনসিংহ সদর আসনের সংসদ সদস্য ও বিরোধী দলের নেত্রী রওশন এরশাদ।

 

পরে আগস্ট মাসের ১৬ তারিখে (বুধবার) নতুন পরিচালকের বদলি প্রত্যাহার বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। আবারও স্বপদে বহাল থাকেন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাসির উদ্দিন আহমেদ।

 

নাছির উদ্দিন আহমেদের সময়কালে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যত উন্নয়ন:

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, চিকিৎসাসেবা দিয়ে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। প্রতিদিন আউটডোর, ইনডোর ও ওয়ান স্টপ সার্ভিস মিলে গড়ে ৯ হাজার রোগীকে বিনামূল্যে শতভাগ ওষুধ, স্বল্প ফি’তে পরীক্ষা-নিরীক্ষাসহ চিকিৎসা সেবা দিয়ে এক অনন্য উদাহরণ সৃষ্টি করে হাসপাতালটি।

 

রোগীদের কল্যাণে বাংলাদেশের ইতিহাসে এই প্রথম ২০১৭ সালে ১৯ নভেম্বর ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু করা হয় এই হাসপাতালে। ওয়ান স্টপ সার্ভিস সারাদেশের একটি মডেল। সেবা পেয়ে রোগীরা শতভাগ সন্তুষ্ট।

 

বৃহত্তর ময়মনসিংহের ২ কোটি মানুষের শেষ ভরসাস্থল এই হাসপাতাল। এছাড়া গাজীপুর ও সুনামগঞ্জ জেলার মানুষও চিকিৎসা নিতে আসেন এই হাসপাতালে।

 

দেশের অন্যতম ৩টি হাসপাতালের মধ্যে একটি এই হাসপাতাল। পরিকল্পিতভাবে এটার পেছনে স্বতস্ফূর্তভাবে লেগে থাকার সার্বক্ষণিক তদারকি ও সকল পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সহযোগিতার ফলে এই মান অর্জন করা সম্ভব হয়েছে।

 

তারপরও ডাক্তার, নার্স ও কর্মচারীদের আন্তরিকতার ফলে হাসপাতালের সেবাদান কার্যক্রম ও অগ্রযাত্রার জন্য দেশসেরা হাসপাতালের মর্যাদা লাভ করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। পাশাপাশি সরকারের রাজস্ব আয়ও বাড়ে বহুগুণ। অনেকগুলো যুগান্তকারী পদক্ষেপের ফলে মানুষ শতভাগ সুচিকিৎসা পাচ্ছে। যার নেতৃত্বে এত বড় সফলতা আসে তিনি হচ্ছেন হাসপাতালের বর্তমান পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাছির উদ্দিন আহমেদ। তিনি পরিচালক থাকা অবস্থায় দিনরাত শ্রম, ত্যাগ স্বীকারের ফলে হাসপাতালটি আজ এই পর্যায়ে নিয়ে আসা সম্ভব হয়েছে।

 

এইচ এম কাদের, সিএনএন বাংলা ২৪গ