ই-পেপার | বুধবার , ১৭ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কলকাতায় টেকনো ইণ্ডিয়া গ্রুপের আবাহন টু জিরো পয়েন্ট ক্রীড়ানুষ্ঠান ও গুণীজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

সালেহ আহমদ (স’লিপক):

ভারতের কলকাতায় সল্টলেক সেক্টর ফাইভে টেকনো ইণ্ডিয়া গ্রুপের ১৬ থেকে ২০ মার্চ পাঁচদিন্যাপী আভান টু পয়েন্ট জিরো ক্রীড়ানুষ্ঠান ও গুণীজন সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। টেকনো ইণ্ডিয়া গ্রুপের ক্রীড়াবিভাগ টেকনো টি কার্ড এই ক্রীড়ানুষ্ঠানের আয়োজন করে। ২৫টি আউটডোর ও ইনডোর গেম ছিলো আয়োজিত টুর্নামেন্টে।

 

সোমবার (১৮ মার্চ) সল্টলেকের টেকনো ইণ্ডিয়া গ্রুপের জি-কনফারেন্স রুমে এক মুখোমুখি আলোচানা সভা ও বিভিন্ন ক্ষেত্রের ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব গুণীজনদের সংবর্ধিত করলো টেকনো ইণ্ডিয়া গ্রুপ।

 

ডালিয়া ঘোষালের পরিচালনায় আলোচনা সভা ও অনিন্দ্য সুন্দর গুণীজন সংবর্ধনায় প্রাক্তন ফুটবলার তরুণ দে, প্রাক্তন ক্রিকেটার কৌশিক মুখার্জি, সিএবি কর্তা ইন্দুভূষণ রায় চৌধুরী, টেকনো ইণ্ডিয়ার সিইও ও ডিরেক্টর সুজয় বিশ্বাস, প্রতিষ্ঠানের প্রিন্সিপাল দীপঙ্কর ভট্টাচার্য, টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপের রেজিস্টার সৌমিত্র শাসমল, প্রতিষ্ঠানের ক্রীড়াদক্ষ ছাত্রী জ্যোতির্ময়ী সাহা এবং টেকনো ইন্ডিয়া গ্ৰুপের কো-চেয়ারম্যান মানসী রায় চৌধুরীকে সংবর্ধিত করা হয়।

 

মুখোমুখি আলোচনায় আলোচকরা বলেন, লেখাপড়ার পাশাপাশি শরীরকে ফিট রাখতে গেলে খেলাধুলা একান্তভাবে দরকার। আবার এই খেলাধুলা করতে করতে এটাকে অনেকেই জীবনে পেশা হিসেবে গ্রহণ করে ফেলেছে। মানুষের জীবনের একঘেয়েমি কাঁটাতে একটা হবির প্রয়োজন। পরে দেখা গেছে সেই হবি ভিশন থেকে মিশনে পরিণত হয়েছে।

 

আলোচকরা আরো বলেন, জীবন তো একটা ভিশন। ভিশনকে মিশনে পরিণত করতে গেলে চাই লড়াই। চাই চেষ্টা। তোমার জন্য কিছুই নেই। কেবল চেষ্টা ছাড়া। আমাদের লড়ে যেতে হবে। লড়াইয়ের কোনো বিকল্প নেই। টেকনো ইণ্ডিয়া গ্রুপ জীবনযুদ্ধে লড়ে যাচ্ছে। আজ তার গ্রহণযোগ্যতা বেড়েছে মানুষের কাছে। আরো আরো লড়তে হবে।