ই-পেপার | বৃহস্পতিবার , ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

গুইমারায় জ্বলবে বিদ্যুতের আলো সরকারের উন্নয়ন নিয়ে অপপ্রচার

এএম ফাহাদ, সিএনএন বাংলা:খাগড়াছড়ি:

খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার সোলার প্যানেল স্থাপনের বিষয়ে নানানমুখি ষড়যন্ত্র করার অপচেষ্টা করছে কুচক্রী মহল। ষড়যন্ত্রকারীরা বসবাস করে বিদুৎতের আলোতে। এসব বিরোধীতা কর্মকান্ড করার জন্য গঠন করেছে মুসলিপাড়া এলাকার একটি সমিতিও। গুইমারা সদর ইউনিয়নের পাঁচ নাম্বার ওয়ার্ডে নির্বাচনে হেরে গিয়ে সাবেক এক মেম্বার এসব করছেন বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।

সরকার যখন পাবর্ত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের মাধ্যমে সোলার প্যানেল স্থাপন করে প্রত্যন্ত এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করছে, তখন এই উন্নয়ন দেখে একটি কুচক্রী মহল নানা অপপ্রচার চালাচ্ছে।

এবিষয়ে গুইমারার ৫নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য দিদারুল আলম জানান, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড প্রতিটি গ্রামে গিয়ে যাচাই করে সোলার প্যানেল স্থাপনে তালিকা প্রণয়ন করেছে। সরকারের এই মহতি উদ্যোগের ফলে এ ওয়ার্ডের লোকজন আলোর মুখ দেখেছে। এ আলোতে অসহায় পরিবারগুলোর ছেলে মেয়েদের ভবিস্যৎ আলোকিত হবে। এ সোলার গুলো অসহায় মানুষের স্বপ্ন।

 

এবিষয়ে স্থানীয় ইন্দ্রমনিপাড়ার কারবারী ইন্দ্রমনি চাকমা জানান, তাঁর পাড়াতে ১১৪ পরিবার বহুকাল বিদ্যুবিহীন বসবাস করছে। সরকার ইতিমধ্যে তার এলাকার মানুষের জন্য সোলার প্যানেল স্থাপন প্রকল্প নিয়ে কাজ করছে। এজন্য সরকারকে পাড়াবাসীর পক্ষ থেকে তিনি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, ইন্দ্রমনিপাড়ায় এমন উন্নয়ন একটি সমিতির লোকজনের সহ্য হচ্ছে না। তারা নানানমূখি ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে।

পাড়া কারবারী সুনীতি চাকমা জানান, তার এলাকায় বিদ্যুৎবিহীন ভাবে ২৫ পরিবার বসবাস করে। সরকার সোলার প্যানেল স্থাপন প্রকল্প নিয়ে কাজ করছে দেখে পাড়ার সকলেই খুশি হয়েছে। ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়াসহ জীবনযাত্রার মান পরিবর্তনের স্বপ্ন দেখছে তারা। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের পর থেকে সাবেক মেম্বার তার কিছু লোক নিয়ে একটি সমিতি করে এ ওয়ার্ডের উন্নয়নে সবসময় অপপ্রচার করে।

রবিন্দ্রপাড়ার কারবারী নগেন্দ্র ত্রিপুরা জানান, তার পাড়ায় বিদ্যুৎ বিহীনভাবে ৩২ পরিবার বসবাস করে। কত কষ্টে চলে তাদের জীবন, সেটা তার এলাকার মানুষ ছাড়া বিদ্যুৎ এলাকার মানুষ কখনো বুঝবেনা।

কবুতরছড়া এলাকার সাবেক গ্রাম সর্দার বাবুল মিয়া জানান, সোলার বিতরণ হয় কিন্তু বাঙ্গালীরা তেমন পায় না। তবে এবার কবুতরছড়া এলাকায় ১২৬ পরিবার পাচ্ছে সরকারের এ বিশেষ সুবিধা।

 

এইচ এম কাদের সিএনএন বাংলা২৪