ই-পেপার | বৃহস্পতিবার , ১৩ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মানবতার ভবিষ্যৎকে হুমকির মুখে ফেলছে এআই

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই) প্রযুক্তির দ্রুত বিকাশ মানবতার ভবিষ্যৎকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলতে পারে বলে মনে করেন বেশিরভাগ আমেরিকান। বুধবার ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও ইপসোসের প্রকাশিত এক মতামত জরিপে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

জরিপের ফলাফলে বলা হয়েছে, দুই-তৃতীয়াংশেরও বেশি আমেরিকান কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার নেতিবাচক প্রভাবের ব্যাপারে উদ্বিগ্ন। আর ৬১ শতাংশ মার্কিন নাগরিকের বিশ্বাস, দ্রুত বিকাশমান এই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা মানব সভ্যতাকে হুমকিতে ফেলতে পারে।

 

মার্কিন কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাবিষয়ক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ওপেনএআইয়ের চ্যাটজিপিটি চ্যাটবট সর্বকালের সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল অ্যাপ্লিকেশন হয়ে উঠেছে। যে কারণে মানুষের দৈনন্দিন জীবনযাপনে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যাপক একীকরণ নতুন এই প্রযুক্তিকে জনসাধারণের আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে নিয়ে এসেছে।

 

মাইক্রোসফট ও গুগলের মতো টেক ও সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট প্রতিষ্ঠান এখন পরস্পরের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা টুলসকে ছাড়িয়ে যাওয়ার লড়াইয়ে লিপ্ত হয়েছে। অন্যান্য প্রযুক্তি কোম্পানিও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার দ্রুত বিকাশে রীতিমতো প্রতিযোগিতা শুরু করেছে।

 

আইনপ্রণেতা এবং এআই কোম্পানিগুলোও নতুুন উদ্ভাবিত এই প্রযুক্তি নিয়ে উদ্বিগ্ন। এআই নিয়ে সৃষ্ট উদ্বেগ ও এর সম্ভাবনা-শঙ্কার বিষয়ে মঙ্গলবার মার্কিন কংগ্রেসের এক শুনানিতে অংশ নিয়েছেন ওপেনএআইয়ের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) স্যাম অল্টম্যান। এই প্রযুক্তির সম্ভাব্য অপব্যবহারের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশের পাশাপাশি নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা তৈরির আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।