ই-পেপার | মঙ্গলবার , ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বেতন-বোনাস বাকি সাড়ে ৩ হাজার কারখানা শ্রমিকের

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক  : বেসরকারি সাড়ে ৩ হাজার কল-কারখানায় শ্রমিকদের বেতন-বোনাস দিয়েছে, ঈদের ছুটি দিয়েছে কিন্তু এখনো ৩ হাজার ৫২২টি কল-কারখানায় ছুটি তো দূরের কথা, শ্রমিকদের বেতন ও বোনাস দেয়নি। বাংলাদেশ শিল্পাঞ্চল পুলিশ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

 

ঈদ উপলক্ষ্যে সরকারি ছুটি শুরু হয়েছে ১৯ এপ্রিল মঙ্গলবার থেকে। নিয়ম অনুসারে ২১ এপ্রিল থেকে অর্থাৎ আজকের দিনের পর থেকে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ঈদের ছুটি শুরু। কিন্তু এখনো সাড়ে ৩ হাজার কল-কারখানা শ্রমিকদের বেতন বোনাস দেওয়া হয়নি।তবে বরাবরের মতোই কারখানা মালিকদের নেতারা আশ্বস্ত করছেন, বেতন ও বোনাস দিয়েই কল-কারখানায় ঈদের ছুটি দেওয়া হবে। ঈদের আগেই সব বেতন-বোনাস পরিশোধ করা হবে।

 

শিল্পাঞ্চল পুলিশের তথ্যমতে, দেশে মোট ৯ হাজার ৬১৬ কলকারখানা রয়েছে। এর মধ্যে আজ বৃহস্পতিবার (২০ এপ্রিল) সকাল ৯টা পর্যন্ত ৩ হাজার ৫২২টি কারখানার শ্রমিকদের মার্চ মাসের বেতন-বোনাস পরিশোধ করা হয়নি। তার মধ্যে শ্রমিকদের মার্চ মাসের বেতন দেয়নি ৬৪৫টি কারখানা। আর বোনাস দেয়নি ২ হাজার ৮৭৭টি কারখানার মালিকরা।

 

শিল্প পুলিশের তথ্যমতে, দেশের ৯ হাজার ৬১৬টি কল-কারখানার মধ্যে সর্বশেষ মার্চ মাসের শ্রমিকদের বেতন দিয়েছে ৮ হাজার ৯৭১টি। অর্থাৎ ৬৪৫টি কল-কারখানায় মার্চ মাসের বেতন হয়নি। শতাংশের হিসেবে ৯৩ দশমিক ২৯ শতাংশ কারখানায় বেতন পরিশোধ করা হয়েছে। কিন্তু বর্তমানে ৭ দশমিক ৭১ শতাংশ কারখানায় শ্রমিকদের বেতন বাকি রয়েছে।

 

বাকি থাকা কারখানাগুলোর মধ্যে বিজিএমইএর সদস্যভুক্ত ১৬৩১টি কারখানার মধ্যে ১৫৪২টির বেতন দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ ৮৯টি কারখানায় এখনো বেতন হয়নি।একইভাবে বিকেএমইএর ৩৬টি, বিটিএমএর ১৭টি এবং অন্যান্য ৫০৩টি কল-কারখানায় বেতন দেওয়া হয়নি।অপরদিকে ৯ হাজার ৬১৬টি কল-কারখানার মধ্যে শ্রমিকদের ঈদের বোনাস দিয়েছে ৬৭৩৯টি কারখানা। অর্থাৎ ২ হাজার ৮৭৭টি কারখানায় বোনাস হয়নি। যা শতাংশের হিসেবে ২৯ দশমিক ৯২ শতাংশ।

 

এখনো বোনাস দেয়নি এমন কারখানার মধ্যে বিজিএমইএর সদস্যভুক্ত প্রতিষ্ঠান বেশি। এ খাতের ১৬৩১টির মধ্যে বোনাস পেয়েছে ১১৩৬টি কারখানার শ্রমিক। বাকি ৪৯৫টি কারখানার শ্রমিকরা বোনাস পায়নি। যা শতকরা হিসেবে ৩০ দশমিক ৩৫ শতাংশ।একইভাবে বিকেএমইএর ৭০০টির মধ্যে বোনাস পায়নি ১০৭টির। বিটিএমএর ৩৫৮টির মধ্যে বোনাস হয়নি ৯১টির। বেপজার ৩৪৫টি কারখানার মধ্যে বোনাস হয়নি ৯টির।

 

পাটকল খাতের ৮৩টি কল-কারখানার মধ্যে ৩৮টির বোনাস পায়নি শ্রমিকরা। এছাড়া অন্যান্য খাতের ৬ হাজার ৪৯৯টি কারখানার মধ্যে বোনাস হয়নি ২ হাজার ১৩৭টির। সব মিলিয়ে ২ হাজার ৮৭৭টি কারখানায় বোনাস হয়নি। শতাংশের হিসেবে ২৯ দশমিক ৯২ শতাংশ কারখানায় শ্রমিকদের বোনাস পরিশোধ হয়নি।

 

ডি .এন .নিউজ .এইচ .এম .সালাহ উদ্দীন কাদের